টেকনাফে পুলিশের গুলিতে ৩ মানব পাচারকারী নিহত

গিয়াস উদ্দিন ভুলু, কক্সবাজার জার্নাল

টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩ মানব পাচারকারী দালাল নিহত হয়েছে। তারা হচ্ছে টেকনাফ সাবরাং ইউনিয়ন শাহপরদ্বীপ ঘোলার পাড়া এলাকার আব্দুস শুক্কুরের পুত্র কোরবান আলী(২৮) এবং টেকনাফ পৌরসভা কেকে পাড়া এলাকার সুলতান আহাম্মদের পুত্র আব্দুর রহমান(৩০), একই এলাকার আমির হোসেনের পুত্র(আব্দুল কাদের(২৫)।

জানা যায়, ২৫ জুন মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টা ৫০মিনিটের সময় টেকনাফ সদর ইউপিস্থ মহেশখালীয়া পাড়া উপকুলীয় এলাকায় মানব পাচারে জড়িত একটি চক্রের সাথে বন্দুকযুদ্ধ সংঘটিত হয়েছে। পুলিশের দাবী ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে দেশীয় তৈরী ৩টি এলজি, ১৫ রাউন্ড শর্টগানের তাজা কার্তুজ ও ২০ রাউন্ড কার্তুজের খালি খোসা।

পুলিশের দাবী এই ঘটনায় তাদের তিন সদস্য আহত হয়েছে।

Loading...

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ কক্সবাজার জার্নালকে জানান, গোপন সংবাদে জানতে পারি সদ্য দায়েরকৃত ১৫ জন মানবপাচার মামলার পলাতক আসামী আব্দুল কাদের,আব্দুর রহমান,কোরবান আলী টেকনাফ সদর ইউনিয়ন মহেশখালীয়া নৌকা ঘাট এলাকায় অবস্থান করেছে।

সেই গোপন তথ্য অনুযায়ী ২৫ জুন গভীর রাত ২টা ৫০মিনিটের সময় তাদেরকে আটক করার জন্য পুলিশ সদস্যরা অভিযানে গেলে তার গুলিবিদ্ধ ৩ যুবকসহ তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। উভয় পক্ষের গোলাগুলিতে মানব পাচার মামলার পলাত এই তিন আসামী গুলিবিদ্ধ হয়।

উক্ত ঘটনায় এ,এস,আই সায়েফ,কনস্টেবল আব্দুল শুক্কুর ও মং ছিং প্রু,আহত হয়। গুলিবিদ্ধ হওয়া ৩ যুবককে উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত ডাক্তার তাদেরকে তিন জনকে মৃত ঘোষনা করে।

তিনি আরো বলেন, এখনো যারা মাদক ও মানব পাচারের মত ঘৃর্ন্য কাজে জড়িত সেই সমস্ত অপরাধীদের চিরতরে নির্মুল করার জন্য আমাদের পুলিশ সদস্যদের কঠোর অভিযান অব্যাহত থাকবে।