টেকনাফে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে মাদক ব্যবসায়ী নিহত

গিয়াস উদ্দিন ভুলু,কক্সবাজার জার্নাল

টেকনাফ বিজিবি ও পুলিশের যৌথ অভিযানে এক মাদক কারবারী নিহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে দেশীয় তৈরী ২টি অস্ত্র ও ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার।

তথ্য সূত্রে জানা যায়, ১৪ মে রাতে টেকনাফ সাবরাং ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য শরিফ বলির নেতৃত্বে আছারবনিয়া এলাকা থেকে ৫০ ইয়াবাসহ ফজল আহাম্মদের পুত্র সিরাজ মিয়াকে আটক করে স্থানীয় জনতা এরপর আটক আসামীকে ইয়াবাসহ আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এদিকে ১৫ মে আটককৃত আসামীর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী গোপন স্থানে লুকিয়ে রাখা অস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার করার জন্য বিজিবি ও পুলিশ সদস্যরা যৌথ ভাবে নাফনদী বেড়িবাঁধ সংলগ্ন এলাকায় অভিযানে গেলে আগেই উৎপেতে থাকা আটক আসামীর সহযোগীরা আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে। এতে দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি সংঘটিত হলে বিজিবি ও পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়।এবংআটককৃত আসামী সিরাজ গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায়। ঘটনাস্থল তল্লাশী করে দেশীয় তৈরী ২টি অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

Loading...

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ সিবিজেকে জানান চলমান মাদক বিরোধী কঠোর অভিযানের মধ্যে এখনো অনেক মাদক ব্যবসায়ী তাদের অবৈধ অপকর্ম অব্যাহত রেখেছে। মাদক কারবারে জড়িত সেই সমস্ত অপরাধীদের ধরতে টেকনাফ উপজেলা আইন-শৃংখলা বাহিনী চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে। তিনি আরো বলেন মাদক কারবারীরা যতই শক্তিশালী হোক তাদেরকে আমরা নির্মুল করে অত্র এলাকাকে মাদক মুক্ত করব।

এদিকে কনেস্টবল শরিফুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা মৃতদেহটির ময়না তদন্ত রিপোর্ট তৈরী করার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেছে।