দেবর-ভাবির গোপন প্রেমে সুখের সংসার শেষ

ডেস্ক রিপোর্ট :

পরকীয়ার জের ধরে জয়নুদ্দীন মালিথা (৫০) নামে এক কৃষককে খুন করেছেন তার স্ত্রী ও ছোট ভাই। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী আবেদা খাতুনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে পলাতক রয়েছেন ছোট ভাই ছহির উদ্দীন।

রোববার রাতে ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত জয়নুদ্দীন মালিথা চরপাড়া গ্রামের সবোদ আলী মালিতার ছেলে। সোমবার সকালে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ।

প্রতিবেশীরা জানান, জয়নুদ্দীন মালিথার স্ত্রী আবেদা খাতুনের সঙ্গে দেবর ছহির উদ্দিনের দীর্ঘদিনের পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এ কারণে দেবর-ভাবি মিলে বড় ভাই জয়নুদ্দীন মালিথাকে হত্যা করেছে। দেবর-ভাবির গোপন পরকীয়া প্রেমের কারণে তাদের সুখের সংসার শেষ হয়ে গেলো।

বিষয়টি নিশ্চিত করে হরিণাকুন্ডু থানা পুলিশের ওসি আসাদুজ্জামান বলেন, দৌলতপুর ইউনিয়নের খাদিখালী চরপাড়া গ্রামের নিজ ঘরের বারান্দায় রোববার রাতে শুয়ে ছিলেন জয়নুদ্দীন মালিথা। রাতের কোনো একসময় তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার পর থেকে ছোট ভাই ছহির উদ্দীন পলাতক রয়েছেন। তবে তার স্ত্রী আবেদা খাতুনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জয়নুদ্দীন মালিথার স্ত্রী আবেদা খাতুনের সঙ্গে দেবর ছহির উদ্দিনের দীর্ঘদিনের পরকীয়া প্রেমের সম্পর্কের জেরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা।

এদিকে, এ ঘটনার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিলু মিয়া বিশ্বাস। এ সময় তিনি বলেন, নিহতের দেহের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। দ্রুত এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

Loading...