ভাইরাল হওয়া ভিডিও সম্পর্কে আবদুল্লাহ আল মাসুদ রুমেলের বক্তব্য

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি ◑
আমি আবদুল্লাহ আল মাসুদ রুমেল সদ্য প্রয়াত এতদঞ্চলের বিশিষ্ট সমাজ সেবক নুরুল হুদা চৌধুরীর পুত্র। আমার আব্বা দীর্ঘদিন ধরে দুরারোগ্য ব্যাধিতে ভোগার পর গত ২৮ ফেব্রুয়ারি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। পিতার মৃত্যু শোকে বর্তমানে আমার মাও অসুস্থ।

এমতাবস্থায় কাল হঠাৎ করে কে বা কারা ২০১২ সালের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছাড়িয়ে দেয়। ভিডিওটি আমার নিজের হাতে করা। এটি ছিল একটি চুরির ঘটনার স্বীকারোক্তি।

২০১২ সালের কোন একদিন আমার মরহুম আব্বা ও আমি হজ্জে যাওয়ার জন্য গচ্ছিত ১ লাখ টাকা চুরি করে পালিয়ে যায় ওই কাজের মেয়ে।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার থানায় সাধারণ ডাইরি করা হয়। পরে পুলিশ মেয়েটিকে উদ্ধার করে আমাদের হাতে তুলে দেয়। মেয়েটিকে বাসায় নিয়ে আসার পর রাগান্বিত মাথায় আমার মা (বর্তমানে অসুস্থ) তাকে বকাবকির এক পর্যায়ে তাকে মারধর করে। মেয়েটির টাকা চুরির স্বীকারোক্তিসহ সবকিছু আমি ভিডিও করে রাখি।

কিন্তু ভিডিওটি এডিট করে, তার স্বীকারোক্তি বাদ দিয়ে শুধু তাকে মারধর করার ভিডিওটি বিকৃত করে কে বা কারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেয়। ঘটনার ৮ বছর পর কুচক্রী গোষ্ঠী উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে আমাদের পরিবারকে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য এটি সামাজিক মাধ্যমে ছেড়েছে।
তাপরও আমি সংঘটিত ঘটনার জন্য দু:খিত, অনুতপ্ত।

এখানে সকলের জ্ঞাতার্থে একটি কথা বলতে চাই, ২০১২ সালের ঘটনা ও আজকের প্রেক্ষাপট সম্পূর্ণ ভিন্ন। ওইসময় আমার আব্বা ছিল। আম্মাও সুস্থ ছিল। এখন আব্বা জীবিত নেই। আব্বার মৃত্যুর পর আম্মাও অসুস্থ। এমতাবস্থায় ৮ বছর আগের বিকৃত ভিডিও নিয়ে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি এবং সার্বিক দিক বিবেচনা করে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার জন্য বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।