বাণিজ্যিকভাবে ভুট্টা চাষে সফল উখিয়ার চাষীরা 

ফারুক আহমদ, উখিয়া ◑

উখিয়ায় ভুট্টা চাষের আবাদ ব্যাপক হারে বেড়েছে। বাণিজ্যিক ভাবে আগাম চাষ করে বাজারে ভালো দাম পাওয়া যাচ্ছে। আর্থিক ভাবে লাভবান হওয়ায় চাষীদের মুখে হাসি ফুটেছে।

কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ জানান চলতি রবি মৌসুমে উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নে ২ শত ৫০ একর জমিতে ভুট্টা চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যা গত বছরের লক্ষ্যমাত্রাকে ছাড়িয়েছে।
স্থানীয় চাষীদের মতে ব্যাপক সফল পাওয়ায় ভুট্টা চাষে দিন দিন আগ্রহ বেড়েছে।

সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা গেছে রত্না পালং ইউনিয়নের ভালুকিয়া পালং, তুলাতুলি, চাকবৈটা, গয়ালমারা রাজাপালং ইউনিয়নের তুতুর বিল দরগাহ বিল, কুতুপালং পালংখালী ও হলদিয়া পালং ইউনিয়নে ব্যাপক ভুট্টা চাষের আবাদ হয়েছে।

উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোস্তক আহমদ জানান, উন্নত জাতের বীজ, আধুনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ ও প্রযুক্তি ব্যবহার করায় এ মৌসুমে অধিক ফলন উৎপাদন হয়েছে।

Loading...

ভালুকিয়া থিমছড়ি এলাকার চাষী হারুন-অর-রশিদ বলেন, আবহাওয়া পরিবেশ অনুকূল থাকায় আগাম ভুট্টা চাষ করে বাজারে ভালো দাম পাওয়া যাচ্ছে। এতে করে খরচ ফুসিয়ে আর্থিক ভাবে লাভবান হয়েছে স্হানীয়রা ।

উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আবু তাহের বলেন, আগের চেয়ে উপজেলার সবখানেই ভুট্টা চাষের আবাদ বেড়েছে। বাণিজ্যিক ভাবে চাষ করে ফলন উৎপাদনেও সফল হচ্ছে চাষীরা।

চাষী হাবিবুর রহমান বলেন, ভুট্টা চাষ করে আর্থিক ভাবে লাভবান হওয়ায় বিস্তৃর্ণ জমিতে চলতি মৌসুমে ব্যাপক আগাম চাষ হয়েছে।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, কার্তিক ও অগ্রহায়ন মাসে ভুট্টা চাষের মোক্ষম সময়। কম খরচে অল্প সময়ে সহজে ভুট্টা চাষ করা যায়। তেমন পরিচর্যা করতে হয় না। রোগ বালাইয়েরও ঝুকি নেই। একটু নজর দিলে অধিক ফলন উৎপাদন করা যায়।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু মাসুদ সিদ্দিকী জানান, চাষীদেরকে ভুট্টা চাষে আগ্রহী করতে সরকারের পক্ষ থেকে বিনামূল্যে বীজ, সার ও কীটনাশক বিতরণ করা হয়েছে। এ ছাড়াও আগ্রহীদেরকে হাতে কলমে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।