টেকনাফের জামাই র‍্যাব সদস্যের শরীরে করোনা শনাক্ত, ১৫টি দোকান ও বাড়ি লকডাউন

গিয়াস উদ্দিন ভূলু, কক্সবাজার জার্নাল ◑

টেকনাফ শ্বশুর বাড়ী থেকে ফিরে যাওয়া ঢাকা উত্তরা এলাকার আক্কাস নামে এক র‍্যাব সদস্যের শরীরে করোনা ভাইরাসের আলামত পাওয়া গেছে। ফলে তার গত কয়েকদিন আগে তার সংস্পর্শে আসা টেকনাফের ১৫টি বাড়ি ও দোকান লকডাউন করেছে উপজেলা প্রশাসন। এর মধ্যে ৭টি দোকান ও ৮টি বাড়ি রয়েছে।

এদিকে ঢাকায় করোনা শনাক্ত র্যাব সদস্যর শ্বাশুড় বাড়ি টেকনাফে। কিছুদিন আগে সে এখান থেকে ফিরে ঢাকা করোনা শনাক্ত হন।

সেই সূত্র ধরে করোনা সন্দেহে ৩ এপ্রিল (শুক্রবার) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে টেকনাফ পুরাতন পল্লান পাড়ায় বাড়ি ও দোকান গুলো লকডাউন করা হয়।

সত্যতা নিশ্চিত করে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো: সাইফুল ইসলাম বলেন,ঢাকায় করোনা শনাক্ত র‍্যাব সদস্যর শ্বশুর বাড়ি টেকনাফ পৌরসভা পুরাত পল্লানপাড়ায়।

কিছু দিন আগে সে এখান থেকে ফিরে করোনা আক্রান্ত হন। ফলে তার সংস্পর্শে আসা প্রায় ১৫টি বাড়ি ও দোকান লকডাউন করে রাখার ঘোষনা দেয়।

তথ্য নিয়ে জানা যায়, গত ২০ মার্চ ঢাকা থেকে আক্কাস নামে এক র‍্যাব সদস্য টেকনাফ পৌরসভার পুরাতন পল্লান পাড়া এলাকায় তার শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে আসে। এরপর সে গত ২৬ মার্চ টেকনাফ থেকে ঢাকায় চলে যায়। সে ঢাকায় সর্দি,জ্বর ও কাশিতে আক্রান্ত হয়। এরপর ৩ এপ্রিল ঢাকায় পরিক্ষা করলে তার শরীরে কভিট-১৯ পজেটিভ পাওয়া যায়। তাকে আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে।

এদিকে তার কাছ থেকে তথ্য নিয়ে চিকিৎসকরা জানতে পারে সে অসুস্থ হওয়ার আগে টেকনাফ শ্বশুর বাড়িতে গিয়েছিল।

তারই সূত্র ধরেই শুক্রবার রাতেই টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো: সাইফুল ইসলাম, টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. টিটু চন্দ্র শীলের নেতৃত্বে একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌছে আক্কাসের শ্বশুর বাড়ীসহ এসব আশে পাশে থাকা বেশ কয়েকটি দোকান ও বাড়ী লকডাউন করে দেয়।