চকরিয়ায় করোনা আতঙ্ক ডাক্তার:  সর্দি-কাশির চিকিৎসা না দেওয়া অভিযোগ রোগীদের 

রাজু দাশ, চকরিয়া ◑
কক্সবাজার চকরিয়ায় করোনা আতঙ্কে সাধারণ সর্দি- কাশিতেও চিকিৎসা মিলছে না, সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা রোগীকে তারা স্পর্শ করছেন না। এমন রোগীদের চিকিৎসা না দেওয়া ক্ষোভ প্রকাশ করছেন সাধারণ মানুষ।
বুধবার (২৫ মার্চ) চকরিয়া পৌরশহরে সরেজমিন বেসরকারী হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, মা শিশু জেনারেল হাসপাতাল, সেন্টাল হাসপাতাল, জমজম হাসপাতাল ঘুরে দেখা গেছে, জ্বর, সর্দি, কাশি নিয়ে কোনো রোগী এলে সরকারি হাসপাতালে রেফার করা হচ্ছে।
কাকারা ইউনিয়ন নাম না বলা অনিচ্ছুক এক যুবকের দাবি এলার্জিজনিত সমস্যা নিয়ে চিকিৎসার জন্য ঘুরেছেন বেসরকারি হাসপাতালে একাধিক। কিন্তু কোথাও মেলেনি সেবা। বরং পরামর্শ দেয়া হয়েছে বাসায় থাকার জন্য।
এমন কয়েকজন ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে জানতে চাইলে তারা জানান, সরকারি বেসরকারি হাসপাতাল গুলো চিকিৎসকরা অবহেলা করতেছেন রোগেদের উপর। হাসপাতালে গুলোতে যদি সাধারণ মানুষ তার অভিযোগ জানাতে পারার জন্য অভিযোগ বাক্স থাকতো তাহলে, উদ্বর্তন কর্মকর্তারা অভিযোগ ধরে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগতভাবে ব্যবস্থা নিতেন। একটার শাস্তি হলে অন্যগুলো একটু হলেও ভয় পাবে। বিচার দিলে যেন বিচার পাওয়া যায়-এ ব্যবস্থাও থাকতে হবে বলে জানান।
এব্যাপারে  ডাঃ শাহবাজ বলেন, প্রাইভেট  হাসপাতাল গুলো আয়তনে ছোট। যদি বেশি জায়গা হতো তাহলে সর্দি কাশি জ্বর রোগী আসলে নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে দেখতে পারতেন। তাই এক্ষেত্রে সমস্যা হচ্ছে। অনেকে হয়তো হাসপাতাল গুলো বন্ধ করছেন না। কিন্তু সর্দি কাশি রোগীদেরকে বাড়িতে থাকার জন্য।
তিনি আরো বলেন, যদি সাধারণ সদি কাশি হয় তাহলে সেটা বাসায় ঠিক করা যায়। যদি চিকিৎসার প্রয়োজন মনে হয় তাহলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগাযোগ করতে পারেন। তবে অন্য রোগীদের বেসরকারি  চিকিৎসা দিতে ডাক্তার বা প্রাইভেট হাসপাতাল গুলোতে সমস্যা হওয়ার কথা নয়।