কবে দেখা মিলবে ৫০০ শয্যার কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল

শাহী কামরান ◑

কবে দেখা মিলবে ৫০০ শয্যার কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এটি এখন কক্সবাজারবাসীর কয়েক বছরের চলমান মনের কথা। ২০০৮ সালে কক্সবাজার সরকারি মেডিকেল কলেজের যাত্রা শুরু হলেও প্রথম থেকেই দাবী ছিল মেডিকেল কলেজের সাথে সংযুক্ত ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল করার।

সে অনুসারে ২০১৭ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কক্সবাজারের একটি সমাবেশ থেকে এই ৫০০ শয্যা হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেছিলেন। বর্তমানে এই হাসপাতালের ভবনের কাজ অনেকাংশে শেষ হয়ে মেডিকেল কলেজ শিক্ষার্থীরা নিয়মিত ক্লাস করছেন। কিন্তু ক্লাস শেষে প্রাকটিক্যাল ক্লাসের জন্য তাদের ৭ কিলোমিটারে দীর্ঘ যানজট ও ধূলাবালিময় সড়ক দিয়ে যেতে হচ্ছে কক্সবাজার সদর হাসপতালে। এই কারনে তাদের প্রতিদিন চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বলে জানায় অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা। তাছাড়া হাসপাতাল নিয়ে স্থানীয়দের দূর্ভোগের যেন শেষ নেই।

২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালে অনেক রোগীদের ঠাই নেই। রোহিঙ্গা রোগীদেরও চাপ দিন দিন বাড়ছে সদর হাসপাতালে।তাদের কারনে হাসপাতাল সবসময় ভরপুর। স্থানীয়রা হাসপাতালে সিট না পেয়ে মেঝেতে শুয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে যা সম্প্রতি বিভিন্ন মিডিয়ায় দেখা গেছে।তাছাড়া চিকিৎসার অভাবে জঠিল রুগীদের রেফার করতে হচ্ছে চট্রগ্রাম বা ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে এতে কষ্টের যেন সীমা নেই।২০০৮ সালে ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল হওয়ার কথা শুনে জেলাবাসী খুশিতে আত্মহারা ছিল। কিন্তু এত বছরেও ৫০০ শয্যার হাসপাতাল অনিশ্চয়তা দেখে কক্সবাজারের মানুষ হতাশ।

সংশ্লিষ্টরা জানান, কক্সবাজারের বর্তমান জনসংখ্যা এবং রোহিঙ্গা রোগীদের বিষয় বিবেচনা করে এখানে নতুন ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটা বাস্তবায়ন হলে জেলার মানুষের সীমাহীন উপকার হবে। এছাড়া মেডিকেল কলেজে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের জন্য উপকারে আসবে।

বর্তমানে মেডিকেল কলেজের অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের প্র্যাকটিক্যল ক্লাস করার জন্য শহরের ভেতরে জেলা সদর হাসপাতালে যেতে হয়। এতে অনেক ধরনের ঝুঁকি নিয়ে তাদের আসা যাওয়া করতে হয়।

এছাড়া জেলা সদর হাসপাতালের বর্তমান অবস্থা রোগীদের জন্য কতটুকু অনূকূল সেটা সবাই জানে। তাই বাস্তব অবস্থা বিবেচনায় নতুন ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল গড়ে তুলতে পারলে সাধারণ মানুষের ব্যপক উপকারে আসবে। আর আমাদের পক্ষ থেকে হাসপাতাল নির্মাণের জন্য মন্ত্রনালয় সহ উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে সব সময় লেখালেখি করছি। সরকারও এ বিষয়ে আন্তরিক। আশা করছি খুব দ্রুত একটি সফলতা আসবে।

কক্সবাজারবাসীর দাবী দ্রুত ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কাজ শুরু করা হউক।