কক্সবাজার শহর নিয়ে চিন্তা করুন

পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতের শহর কক্সবাজার। দেশের এবং বাইরের অসংখ্য পর্যটক প্রতিনিয়ত এই শহরে আসছেন। ডলফিন মোড় থেকে কলাতলী সড়কটি ভালভাবে সজ্জিত করলে পর্যটকদের চোখে আকর্ষণীয় দেখাবে। এই সড়কের পাশে বিভিন্ন ধরনের ফুলের গাছ লাগানো যেতে পারে। এই সড়কে রাত্রিকালীন বাতির পরিমাণ বাড়াতে হবে। গত কয়েকদিন আগে বার্মিজ মার্কেট যাওয়ার পথে দেখলাম গোলদিঘির আশে পাশে রাস্তার অবস্থা খারাপ হয়ে গেছে। সড়ক ব্যবস্থার পাশাপাশি আরেকটি ব্যাপার চোখে পড়ার মত। সেটি হচ্ছে শব্দ দূষণ। প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অনেকে এখানে শিক্ষা সফর বা বনভোজনে আসেন। অনেক সময় দেখা যায় আগত কিছু পর্যটকদের মাইক আর সাউন্ড সিস্টেমের আওয়াজে রাতের বেলা ঘুমানো সমস্যা হয়ে পড়ে। রাত ১০টা থেকে শব্দ নিয়ন্ত্রণে কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া খুব জরুরি।

Loading...

বায়ু ও শব্দ দূষণ থেকে কক্সবাজারকে মুক্ত রাখার দায়িত্ব শুধু সরকারের একার নয়। আমাদের প্রত্যেকের দায়িত্ব আছে। এই শহরকে যত বেশি পরিষ্কার রাখতে পারব তত বেশি আমাদের সুনাম বৃদ্ধি পাবে। বাইরের পর্যটক যত বেশি আমাদের দেশে আসবে তত বেশি আমাদের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জিত হবে। শহরের বিভিন্ন জায়গায় যেভাবে সুন্দর হোটেল প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে সেভাবে রাস্তা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা দরকার। শান্ত আর স্নিগ্ধ পরিবেশে সকল পর্যটক কক্সবাজার এসে অনাবিল আনন্দ উপভোগ করুক এটাই কামনা করছি।

রূপম চক্রবর্ত্তী
পূর্বনলুয়া, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম।