উখিয়ায় বনের জমি দখল করে বাড়ি নির্মাণের হিড়িক

নিজস্ব প্রতিবেদক ◑

উখিয়া রত্না পালং ইউনিয়ন, ভালুকিয়া, পশ্চিম থিমছড়ি গ্রামের বিটে বনের জমি দখল করে ঘরবাড়ি নির্মাণের প্রতিযোগিতা চলছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বনের সংরক্ষিত গেজেট ভুক্ত জমি এলাকার একটি প্রভাবশালী মহল ও স্থানীয় কতিপয় দালাল তদবির কারকদের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় বনের জমি দিনে রাতে বন কর্মকর্তাদের মেনেজ করে দখল প্রতিযোগিতায় মাঠে নেমেছে ওই অসাধু মহলটি।

এদিকে কেউ কেউ আবার শুধু দখলের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়, জমি দখল করে নিজের কব্জায় রেখে পাহাড়ি জমি বিক্রির হিড়িক পড়েছে এই এলাকা গুলোতে। এর ফলে কেউ আঙ্গুল ফুলে হচ্ছে কলা গাছ। আবার অন্যদিকে হারিয়ে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী বনাঞ্চল। এর কারণে পরিবেশের ক্ষতি সাধন হচ্ছে।

এ বিষয়ে রত্নাপালং ভালুকিয়ার বিট কর্মকর্তা আবছারের কাছ থেকে জানতে চাইলে তিনি জমি দখল করে বাড়ি নির্মাণের বিষয়টি স্বীকার করে জানান যারা বন দখল করে বাড়ি ঘর নির্মাণ করছে তাদের বিরুদ্ধে বনের জমি দখলের অবৈধভাবে নির্মিত ঘরবাড়ি উচ্ছেদসহ বন আইনে মামলা প্রক্রিয়াধীনে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, রত্নাপালং ইউনিয়নের ভালুকিয়ার পশ্চিম থিমছরি ফকির মীর মিয়াজি দরগার উত্তর পাশের পাহাড়ে বাড়ি নির্মাণ করছেন নুরুল আলম, পিতা: মৃত-বুজুরুচ মিয়া নামের এক ব্যক্তি।

এলাকাবাসীরা বলেন, নুরুল আলম ও তার ছেলেরা বিট কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করেই ঘরবাড়ি নির্মাণের কাজ করছেন। তবে বিট কর্মকর্তার তথ্যমতে দেখা গেছে অবৈধ দখলকারীর হোতাদের বিরুদ্ধে এখনো মামলা করা হয়নি।

ভালুকিয়ার বিট কর্মকর্তা আবছার আরও জানান, বিশাল এবন এলাকা দেখাশোনা ও পর্যবেক্ষণ করার জন্য পর্যাপ্ত জনবল না থাকায় দায়িত্ব পালন করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

এ বিষয়ে উখিয়া উপজেলা বন কর্মকর্তা তারিকুল এর কাছ থেকে জানতে চাইলে তিনি এই বিষয়ে অবগত নয় বলে জানিয়েছেন।